মারো ঠেলা হেঁইয়ো… শাবাশ জোয়ান হেঁইয়ো…

বর্ষা মৌসুমে মাদারীপুরের সদরসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতি বছরই নৌকা বাইচের আয়োজন করা হয়। এ বছর পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি না হওয়ায় চৌরাশী গ্রামের কয়েকজন যুবক মানুষজনকে আনন্দ দেওয়ার জন্য এ ভেলা বাইচের আয়োজন করেন। এই উপলক্ষে মাদারীপুরে হয়ে গেল কলাগাছ দিয়ে তৈরী ভেলা বাইচ প্রতিযোগিতা। হাজার হাজার দর্শনার্থী প্রথমবারের মত আনন্দ উল্লাসে উপভোগ করলেন অভিনব এই ভেলা বাইচ। এ সময় এখানে মুখরিত হয় মারো ঠেলা হেঁইয়ো, শাবাশ জোয়ান হেঁইয়ো, আরও জোরে হেঁইয়ো-এমন নানা কোরাসে ।

ব্যতিক্রমী এই আয়োজন দেখে মুগ্ধ সাধারণ মানুষ। শুক্রবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে মাদারীপুরের বাজিতপুর ইউনিয়নের চৌরাশী এলাকার সাধুর খালে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করেন স্থানীয় যুব সমাজ।

আয়োজকরা জানায়, কালের বিবর্তনে নৌকা বাইচ নিয়ে নৌপথে প্রতিযোগিতা অনেকটাই হারিয়ে যেতে বসেছে। এক সময় সারা বাংলায় জনপ্রিয় ছিল নৌকা বাইচ। তবে কিন্তু সেই বাইচের ধারাবাহিকতায় মানুষের মাঝে তুলে ধরতে ও শারদীয় দূর্গা পূজার আগমন উপলক্ষে মানুষের মনে আনন্দ উদ্দীপনা জাগ্রত করে তুলতে এই ব্যতিক্রমী আয়োজন করা হয়।

গ্রাম বাংলার এ ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য আয়োজকরা আগামীতে আরো বৃহৎ আকারে ভেলা বাইচের আয়োজন করার জন্য প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

কলাগাছ দিয়ে ভেলা বাইচ প্রতিযোগিতায় ৬ ভাগে ৭০ দল অংশ নেয়। পরে ফাইনাল রাউন্ডে কার্তিক বৈদ্য ভেলা প্রথম হয়। এছাড়াও উপজেলার আমগ্রাম থেকে আসা ভেলা কৃষ্ণ করাতির ভেলা হয় দ্বিতীয় এবং তৃতীয় হয় জগদীশ ভক্তর ভেলা। প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের হাতে তুলে দেয়া হয় পুরস্কার।

বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা দিপীকা রাণী, সজিব, আরিফ, অজয়, রতন বলেন, ‘ভেলা বাইচের এই আয়োজন দেখে আমি মুগ্ধ। আমি পরিবার পরিজন নিয়ে এই ভেলা বাইচ প্রতিযোগিতা দেখতে এসেছি। আগামীতেও এমন আয়োজন হলে আমি আসবো। তবে, আজকের আয়োজন আমার কাছে খুব ভালো লেগেছে।’

স্থানীয় যুব সমাজের আহবায়ক ও ভেলা বাইচের উদ্যোক্তা প্রশান্ত মন্ডল বলেন, নৌকা বাইচের ধারাবাহিকতায় মানুষের মাঝে তুলে ধরতে ও শারদীয় দূর্গা পূজার আগমন উপলক্ষে মানুষের মনে আনন্দ উদ্দীপনা জাগ্রত করতে আমরা এই ভেলা বাইচের আয়োজন করেছি। সকলের সহযোগিতা পেলে আগামীতেও এই ভেলা বাইচের ধারা অব্যাহত রাখতে চাই।

এছাড়া পুরস্কার বিতরণী অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে পুরস্কার বিতরণ করেন বাজিতপুর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম হাওলাদার। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রভাষক নিত্যানন্দ হালদার, আওয়ামী লীগ নেতা নিত্যানন্দ বিশ্বাস, চেয়াম্যানের সহধর্মিনী তৃষা হাওলাদার।

Share Post